জার্মানির ডুয়াল মোড ট্রেনিং TVET: বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে চ্যালেঞ্জ ও সুপারিশ

জার্মানির ডুয়াল মোড ট্রেনিং TVET: বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে চ্যালেঞ্জ ও সুপারিশ
 

German Dual Mode Training TVET: Challenges and Recommendations in the Context of Bangladesh

জার্মানির ডুয়াল মোড ট্রেনিং TVET (Technical and Vocational Education and Training) ব্যবস্থা বিশ্বব্যাপী স্বীকৃত এবং প্রশংসিত। এটি তরুণদের তাদের পছন্দের পেশার জন্য প্রয়োজনীয় দক্ষতা অর্জন এবং কর্মক্ষেত্রে প্রবেশের জন্য প্রস্তুত করার একটি কার্যকর পদ্ধতি। এই ব্যবস্থার মূলনীতি হলো তাত্ত্বিক জ্ঞান এবং ব্যবহারিক প্রশিক্ষণের সমন্বয়।

ডুয়াল মোড ট্রেনিং TVET:

ডুয়াল মোড ট্রেনিং TVET (Technical and Vocational Education and Training) ব্যবস্থা তরুণদের কর্মসংস্থানযোগ্যতা বৃদ্ধির জন্য একটি কার্যকর পদ্ধতি। এই ব্যবস্থায়, শিক্ষার্থীরা তাদের পছন্দের কোম্পানিতে অ্যাপ্রেনটিস হিসেবে কাজ করে এবং একই সাথে একটি TVET প্রতিষ্ঠানে তাত্ত্বিক জ্ঞান অর্জন করে। অ্যাপ্রেনটিশিপের সময়কাল সাধারণত 2 থেকে 3 বছর হয়। এই সময়ের মধ্যে, অ্যাপ্রেনটিসরা অভিজ্ঞ কর্মীদের তত্ত্বাবধানে বিভিন্ন ধরণের কাজের অভিজ্ঞতা অর্জন করে।

ডুয়াল মোড ট্রেনিং TVET-এর সুবিধা:

  • ব্যবহারিক দক্ষতা অর্জন: এই ব্যবস্থার মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা তাদের পছন্দের পেশার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবহারিক দক্ষতা অর্জন করে।
  • কর্মক্ষেত্রের অভিজ্ঞতা: অ্যাপ্রেনটিশিপের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা বাস্তব কর্মক্ষেত্রের অভিজ্ঞতা অর্জন করে যা তাদের কর্মসংস্থানের সম্ভাবনা বৃদ্ধি করে।
  • চাহিদা-ভিত্তিক প্রশিক্ষণ: এই ব্যবস্থায় শিক্ষার্থীদের প্রশিক্ষণ শিল্পের চাহিদা অনুযায়ী প্রদান করা হয়।
  • শিক্ষা ও কর্মসংস্থানের সমন্বয়: ডুয়াল মোড ট্রেনিং TVET শিক্ষা ও কর্মসংস্থানের মধ্যে সমন্বয় স্থাপন করে।

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে ডুয়াল মোড ট্রেনিং TVET:

বাংলাদেশের TVET ব্যবস্থা দ্রুত বিকশিত হচ্ছে। সরকার TVET কে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের একটি গুরুত্বপূর্ণ হাতিয়ার হিসেবে বিবেচনা করে। ডুয়াল মোড ট্রেনিং TVET ব্যবস্থা বাংলাদেশের জন্য একটি আকর্ষণীয় ধারণা কারণ এটি তরুণদের কর্মসংস্থানযোগ্যতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করতে পারে।

বাংলাদেশে ডুয়াল মোড ট্রেনিং TVET ব্যবস্থা বাস্তবায়নের জন্য কিছু পদক্ষেপ:

  • সচেতনতা বৃদ্ধি: ডুয়াল মোড ট্রেনিং TVET ব্যবস্থা সম্পর্কে শিল্প, শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকদের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি করা।
  • অবকাঠামো উন্নয়ন: TVET প্রতিষ্ঠানগুলিতে প্রয়োজনীয় অবকাঠামো এবং প্রশিক্ষণ সরঞ্জাম স্থাপন করা।
  • শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ: ডুয়াল মোড ট্রেনিং TVET ব্যবস্থা প্রদানের জন্য শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ প্রদান করা।
  • শিল্পের সাথে সম্পর্ক স্থাপন: TVET প্রতিষ্ঠানগুলির সাথে শিল্পের মধ্যে সম্পর্ক স্থাপন করা এবং শিল্পের চাহিদা অনুযায়ী প্রশিক্ষণ প্রদান করা।
  • সরকারি সহায়তা: সরকারের পক্ষ থেকে ডুয়াল মোড ট্রেনিং TVET ব্যবস্থা বাস্তবায়নের জন্য প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদান করা।

চ্যালেঞ্জ:

চাহিদা এবং সরবরাহের মধ্যে অসঙ্গতি:

  • সমাধান:
    • TVET প্রতিষ্ঠান এবং শিল্পের মধ্যে আরও বেশি সমন্বয় স্থাপন করা।
    • শিল্পের চাহিদা অনুযায়ী TVET প্রতিষ্ঠানগুলির প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিমার্জন করা।
    • শিল্পের বিশেষজ্ঞদের TVET প্রতিষ্ঠানে প্রশিক্ষক হিসেবে নিয়োগ করা।

অবকাঠামোগত ঘাটতি:

  • সমাধান:
    • TVET প্রতিষ্ঠানগুলির অবকাঠামো উন্নয়নের জন্য সরকারি বিনিয়োগ বৃদ্ধি করা।
    • বেসরকারি খাতের অংশগ্রহণ উৎসাহিত করা।
    • আন্তর্জাতিক সহায়তা গ্রহণ করা।

শিক্ষকদের দক্ষতার অভাব:

  • সমাধান:
    • TVET শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ এবং দক্ষতা উন্নয়নের জন্য প্রোগ্রামগুলি বাস্তবায়ন করা।
    • অভিজ্ঞ শিক্ষকদের জন্য প্রণোদনা প্রদান করা।
    • শিক্ষকদের জন্য আন্তর্জাতিক প্রশিক্ষণের সুযোগ সৃষ্টি করা।

সচেতনতার অভাব:

  • সমাধান:
    • ডুয়াল মোড ট্রেনিং TVET ব্যবস্থা সম্পর্কে শিল্প, শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকদের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য প্রচারণা চালানো।
    • TVET প্রতিষ্ঠানগুলিতে ওপেন ডে আয়োজন করা।
    • সফল অ্যাপ্রেনটিসদের সাফল্যের গল্প প্রচার করা।

সুপারিশ:

শিল্পের সাথে TVET প্রতিষ্ঠানগুলির মধ্যে সম্পর্ক জোরদার করা:

  • সমাধান:
    • TVET প্রতিষ্ঠান এবং শিল্পের মধ্যে নিয়মিত মিটিং এবং কর্মশালা আয়োজন করা।
    • শিল্পের বিশেষজ্ঞদের TVET প্রতিষ্ঠানের গভর্নিং বডিতে অন্তর্ভুক্ত করা।
    • শিল্পে শিক্ষার্থীদের জন্য ইন্টার্নশিপ প্রোগ্রাম তৈরি করা।
    • শিল্প-ভিত্তিক প্রশিক্ষণ প্রোগ্রাম তৈরি করা।

অবকাঠামো এবং প্রশিক্ষণ সরঞ্জাম উন্নত করা:

  • সমাধান:
    • TVET প্রতিষ্ঠানগুলির জন্য আধুনিক অবকাঠামো নির্মাণ করা।
    • আধুনিক প্রশিক্ষণ সরঞ্জাম সরবরাহ করা।
    • TVET প্রশিক্ষকদের প্রশিক্ষণের জন্য প্রয়োজনীয় সম্পদ সরবরাহ করা।

সচেতনতা বৃদ্ধি:

  • সমাধান:
    • ডুয়াল মোড ট্রেনিং TVET ব্যবস্থা সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য মিডিয়ায় প্রচারণা চালানো।
    • স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে সচেতনতামূলক কর্মসূচি আয়োজন করা।
    • ডুয়াল মোড ট্রেনিং TVET ব্যবস্থার সুবিধা সম্পর্কে শিক্ষার্থী, অভিভাবক এবং শিল্পের কাছে তথ্য প্রদান করা।

সরকারি সহায়তা:

  • সমাধান:
    • TVET ব্যবস্থার উন্নয়নের জন্য সরকারি বাজেট বৃদ্ধি করা।
    • TVET প্রতিষ্ঠানগুলিকে আর্থিক অনুদান প্রদান করা।
    • TVET প্রশিক্ষকদের জন্য বেতন এবং সুবিধা বৃদ্ধি করা।

আন্তর্জাতিক সহযোগিতা:

  • সমাধান:
    • জার্মানির মতো দেশগুলির সাথে সহযোগিতা চুক্তি স্বাক্ষর করা।
    • TVET প্রশিক্ষক এবং শিক্ষার্থীদের জন্য আন্তর্জাতিক বিনিময় প্রোগ্রাম তৈরি করা।
    • আন্তর্জাতিক তহবিল থেকে TVET ব্যবস্থার উন্নয়নের জন্য অর্থায়ন আকর্ষণ করা।

ডুয়াল মোড ট্রেনিং TVET ব্যবস্থা বাংলাদেশের TVET ব্যবস্থার উন্নয়নের জন্য একটি সম্ভাব্য সমাধান। এই ব্যবস্থা বাস্তবায়নের জন্য কিছু চ্যালেঞ্জ থাকলেও, সরকার, শিল্প এবং TVET প্রতিষ্ঠানগুলির সমন্বিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে এগুলো সমাধান করা সম্ভব।

Comments

No comments yet. Why don’t you start the discussion?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *